Angels Pursuit (মোয়াক্কেল সাধনা)

Angels Pursuit মোয়াক্কেল সাধনাঃ

নিচের সাধনাটি যেমন সহজ সরল তেমনি এর ফলাফল ও আশ্চার্য্য এবং অবধারিত। আমলকারীকে কয়েকটি বিষয় বিশেষ ভাবে লক্ষ রাখিতে হইবে। সর্বদা নিজেকে পাক সাফ রাখিতে হইবে। আমলের স্থানটিকে পবিত্র রাখিতে হইবে। নির্দিষ্ট কার্য্য আরম্ভ করিয়া কার্য্য কালে কাহারও সাথে কোন প্রকার বাক্যালাপ করিতে পারিবে না। আমল বুধবার দিবাগত বৃহস্পতিবার রাত্রে আরম্ভ করিয়া পরের সপ্তাহ পর্যন্ত অর্থাৎ আবার বুধবার দিবাগত বৃহষ্পতিবার রাত্রে শেষ করিবে। আমলের এই পনের দিন মাছ-মাংস আহার না করিয়ে নিরামিশ খাদ্য ভোজন করিবে। নিম্নোক্তরুপে সুরা ইখলাস পাঠ করিবে।

সুরাঃ বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম, ক্বুলহু আল্লাহু আহাদ। আজিব ইয়া জিব্রাইলু আল্লাহুচ্ছামাদ। আজিব ইয়া ইস্রাফিলু। লাম ইয়ালিদ ওয়ালাম ইউলাদ। আজিব ইয়া আজ্রাইলু। ওয়ালাম ইয়াকুল্লাহু কু’ফুয়ান আহাদ। আজিব ইয়া………

বৃহষ্পতিবার রাত্রে আরম্ভ করিয়া ইহা চৌদ্দ রাত্রি পর্যন্ত প্রত্যহ ছয় হাজার বার করিয়া পড়িতে হইবে এবং পনের তারিখ অর্থাৎ বৃহষ্পতিবার রাত্রে ষোল হাজার বার পড়িয়া মোট এক লক্ষ বার খতম করিবে। ঐ রাত্রে লোবান, কর্পূর ইত্যাদি জ্বালাইবে এবং অন্যান্য খুশবু ব্যবহার করিবে। উহার পর শুক্রবার রাত্রে দুই হাজার বার শুধু সুরা ইখলাস পাঠ করিয়া ইস্তেগফার পড়িতে থাকিবে। রাত্রি যখন প্রায় ভোর হইয়া আসিবে তখন একবার নিম্নের দোওয়াটি পাঠ করিবে। ***“রাহমাতুন আলাইকুম আইয়্যুহাল খুদ্দাম হাজিহীচ্ছুরাতুশ শারীফাুত আইয়্যাজিবুলী ওয়া ইন তানুনী বেহাক্কি লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মোহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহি মা তাফছুদুনা ইল্লা মাছার তুমুল আজাবতা লাদাওয়ানী ওয়াল আফামাহা লা’তায়াতী মাছিররাউ ওয়া আহ্দাহু ওয়া আতিও বেহাক্কি ক্বাউলিহী তায়ালা আদ্‌উনী আসতাজিবলাকুম ইন্নাল্লাজীনা তাছায়ালুনা আন ইবাদাতি ছাইয়াদ খুলুনা জাহান্নামা ওয়া আখারিনা।” *** (অবশ্যই সাধনা শুরুর পূর্বে এ্যডমিনের সাথে যোগাযোগ করে সাধনা প্রদান কারী মুফতির নিকট হতে সম্পূর্ণ দোওয়াটি পূনরায় সঠিক উচ্চারণে গ্রহনের অনুরোধ রইলো।)

এই দোওয়াটি পাঠের পরে তিনজন মোয়াক্কেল উপস্থি হইয়া বলিবে “আচ্ছালামু আলাইকুম ইয়া আবাদাচ্ছালেহ ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু” আমরা এই সুরার খুদ্দাম আপনি কি চাহিতেছেন? তখন তাহাদের নিকট আনুগত্য, তা’জীম এবং বাধ্যতার কথা প্রস্তাব করিলে তাহারা ঐ সব স্বীকারপূর্বক বলিবে- আপনাকে আমাদের কিছু শর্ত স্বীকার করিতে হইবে, নচেৎ আপনার উদ্দেশ্য সফল হইবে না।

শর্তসমুহ এই যে, আজ হইতে যাবতীয় অন্যায় কাজ হইতে বিরত হইতে হইবে, মিথ্যা পরিত্যাগ করিতে হইবে, প্রত্যেক বৃহষ্পতিবার রোজা রাখিতে হইবে, এবং প্রত্যেক জুময়ার রাত্রে একশত একবার সুরা ইখলাস পড়িয়া তাহাদের জন্য সওয়াব বখশেশ করিবেন। আমল কারি আল্লাহকে সাক্ষী রাখিয়া এই সমস্ত কথাগুলি স্বীকার করিলে মোয়াক্কেলগণ তাহার সহিত করমর্দন করিয়া বলিবে, আপনি আজ হইতে আমাদের ভাই, আপনার যাবতীয় হাজত আমরা পুরা কারিয়া দিবো। একজন বালিবে যে, আমার নাম আবদুল ওয়াহেদ আপনি যখন সুরা ইখলাস আহাদ পর্যন্ত পড়িয়া  বলিবেন, ইয়া আবদাল ওয়াহেদ। আমি তখন’ই আপনার সামনে হাজির হইবো। আপনার প্রয়োজন হইলে আমি আপনাকে চক্ষের একটি পলকের মধ্যেই মক্কা শরীফ, মদিনা শরিফ জেয়ারত করিয়া আবার পূনরায় এখানে ফিরিয়া দিয়া যাইবো। দ্বিতীয়জন বলিবে আমার নাম আবদুচ্ছামাদ যখন আপনার কোন দরকার হইবে তখন এই সুরা সামাদ পর্যন্ত পড়িয়া জোড়ে বলিবেন ইয়া আবদাচ্ছামাদ। আমি তখনই উপস্থিত হইবো, আমার কার্য এই যে আপনার ইচ্ছেনুসারে আমি আপনাকে হালাল রুজি আনিয়া ‍দিবো, কখনও আপনার কোনরুপ আহারের অভাব পড়িবে না।  তৃতীয় মোয়াক্বেল বলিবেন, আমার নাম আবদুর রহমান। যখন আপনার কোন দরকার হইবে তখনি আপনি সুরা ইখলাস শেষ পর্যন্ত পড়িয়া ইয়া আবদার রহমান বালিয়া ডাক দিবেন। আমি চোখের পলকেই আপনার সামনে এসে উপস্থিত হইবো। আমার কার্য এই যে আমি আপনাকে বহুবিধ গুনজ্ঞান ও আশ্চর্য্য বিদ্যা শিখাইয়া দিব। ইহার পরে ঐ তিনজন আল্লাহর নামে সিজদাহ করিতে বলিলে আমলকারি আল্লাহর উদ্দেশ্যে সিজদাহ করিবে। ওনারা বিদায় নিয়ে চলে যাবে। এরপর হতে আপনার আমল ও কামেলিয়াত দ্বারা জীবন যাপন শুরু করিতে হইবে।

Admin address…

Sharing is caring!

Top
error: Content is protected !!