Force your wife সর্ব স্ত্রী বশীকরণ প্রোয়োগ

All Post Enchantment (সর্ব বশীকরণ)

সর্ব স্ত্রী বশীকরণ প্রোয়োগ

স্ত্রী/নারী বশীকরণ তথা কনভেন্স করার প্রবনতা আমাদের মাঝে অনাদীকাল হতেই রয়েছে, শুধু আমাদের মাঝে বললেও ভুল হবে আমাদের আশে পাশের সকল পশু পাখি, জীব জন্তুর মাঝেও রয়েছে বিপরিত লিঙ্গকে আর্কষন করার বিভিন্ন প্রকৃয়া, আমরা ঘর হতে বের হয়ে একটু চার পাশে তাকালেই তা বুঝতে পারি। যেহেতু আমরা মানব জাতি নিজের কথা, আচরন, ব্যবহার, রুপ-লাবন্য, পৌড়ষ, অর্থ-সম্পদের অহম ইত্যাদির মাধ্যমেই চেষ্টা করে থাকি বিপরীত লিঙ্গকে কনভেন্স করার জন্য কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই তা ব্যার্থ হয় কারন সকলেই কিন্তু এ সবে মুগ্ধ হয় না। ঠিক তখনি আমাদের মাথায় আসে তাকে তান্ত্রিক প্রকৃয়ায় কনভেন্স বা বশীভুত করতে, নিচে এমন প্রয়োজনের তাগিদেই একটি আদী তান্ত্রিক ক্রিয়া উপস্থাপন করা হলো, যা সঠিক গুরুর দিক নির্দেশনায় সঠিক ভাবে করলে অবশ্যই আপনার মনোরথ পূর্ণ করবে।

সামগ্রী-

  1. কাঁসার থালা
  2. এগারোটি প্রদীপ
  3. সিন্দুর
  4. ভোজপত্র
  5. জলপাত্র
  6. মন্ত্রসিদ্ধ চৈতন্য পারদ শিবলিঙ্গ।

মালা- মুঁগের মালা

সময়- রাত্রীর যে কোন সময়

দিন- রবিবার

আসন- লাল রঙের যে কোন আসন

দিক- পশ্চিম দিক

জপ সংখ্যা-১১০০০

অবধি- এগারো দিন

মন্ত্র-“ওঁ নমো অবস্থনী মহারাজ তেল কা দীপক ঘী কী জোত, ফুলো কী মালা, গলে বিরাজে, আপবী গতি কোই ন জানে, হাথ পছানু মুখ ধোউ, সুমিরুং আপকা নাম নিরন্তর হমারী লাজ রখো মোহিনী দোহিনী সোহিনী তীনো বহিন আব আস মোহুং সব সংসার মে  তিলক লগাকর নিকলু জো দেখে ও বন্ধে অঞ্জনী কে পুত কী দুহাই, গুরু গোরখনাখ কী দুহাই, মেরী ভক্তি, গুরু কী শক্তি ফুরো মন্ত্র ঈশ্বরো বাচা।।”

প্রয়োগ-রবিবার রাতে একটা কাঁসার থালায় ভোজপত্র বিছিয়ে দিতে হবে। এর উপরে আসল সিন্দুর দিয়ে উপরোক্ত মন্ত্রটি লিখতে হবে। এবার এর সামনে এগারোটি তৈলপ্রদীপ জ্বালিয়ে মন্ত্রসিদ্ধ পারদ শিবলিঙ্গ এর উপর স্থাপন করতে হবে এবার উপরোক্ত মন্ত্র নিশ্চিত সংখ্যায় জপ করতে হবে। এইভাবে রোজ এগারো দিন ধরে করতে হবে। এগারো হাজার মন্ত্র-জপ পুরা হয়ে গেলেই মন্ত্র সিদ্ধ হয়ে যাবে এবং তখন এই মন্ত্রের দ্বারা সে সকল স্ত্রীকে বশীকরণের শক্তি প্রাপ্ত হয়। এরপর ঐ ব্যক্তি যাকেই দেখবে, সে যে কোন ব্যক্তি বা স্ত্রী হোক তার সামনে তিনবার ঐ মন্ত্র পড়ে ফুঁ দিলে সেই ব্যক্তি বা স্ত্রী তার বশীভূত হবে। মনে রাখতে হবে, ভুলেও এই মন্ত্রের দুরুপোযোগ করা যাবে না। না মানলে সাধকের ভয়ানক ক্ষতি হবে।