Just change your fate by looking at the moon (চাঁদ দেখে ভাগ্য পরিবর্তন করুন)

চাঁদ দেখে কোন কাজটিতে আপনার মঙ্গলঃ

­­­­­­­­­­­­­­মহররম-মহররমের দিকে চাঁদ দেখে স্বর্ণ দেখা মঙ্গলজনক।

সফর-সফর মাসের প্রথম দিনে সফরের চাঁদ দেখে আয়না দেখা ভাল। এ চাঁদে নতুন গৃহ নির্মাণ করা ও বিয়ে শাদী হওয়া ভাল নয় বলে অনেকে মনে করে আসলে তা হলো মূর্খতা। রাসূলুল্লাহ (সাঃ) এ মাসে বিবাহ করেছেন।

রবিউল আউয়াল– এ মাসে প্রথম তারিখে চাঁদ দেখে দরুদ শরীফ পড়া অত্যান্ত সওয়াবের কাজ ও পার্থিব মঙ্গলজনক। এ চাঁদে বিয়ে শাদী হওয়া বা কোন শুভ কাজ শুরু করা খুব ভাল।

রবিউস সানী– এ মাসে প্রথম চাঁদ দেখে ছালগ দেখা মঙ্গলজনক। এ চাঁদে বিয়ে শাদী বা অন্য কোন শুভ কাজ শুরু করা খুব ভাল।

জমাদিউল-আউয়াল-এ মাসের চাঁদ প্রথম দেখে চাঁদী বা রুপা দেখা অত্যন্ত মঙ্গলজনক। এ চাঁদে বিয়ে হওয়া অশুভ কিন্তু নতুন ঘর তৈরি করা মঙ্গলজনক।

জমাদিউলস সানি-প্রথম দিনে এ চাঁদ প্রথম দেখা মাত্র পিতা-মাতা, উস্তাদ প্রভৃতির কদমবুছি করা অত্যন্ত মঙ্গলজনক। এ চাঁদে বিয়ে শাদী বা যে কোন নতুন শুভ কাজ করা ভাল।

রজব-প্রথম দিনে রজবের চাঁদ দেখলে কোরআন শরীফ চুম্বন করা অত্যন্ত সওয়াবের কাজ ও মঙ্গলজনক। এ চাঁদে বিয়ে শাদী যে কোন নতুন শুভ কাজ করা অতি উত্তম।

শাবান-প্রথম তারিখে শাবানের চাঁদ দেখা অত্যন্ত মঙ্গলজনক। এ চাঁদে নতুন ঘর তৈরি আরম্ভ করা ভাল এবং অন্য যে কোন শুভ কাজ করা ভাল।

রমজান-রমজান মাসের প্রথম তারিখে চাঁদ দেখার পর তলোয়ার হাতে নিয়ে দেখা মঙ্গলজনক। এ চাঁদে নতুন ঘর তৈরি করা উচিত নয়, কিন্তু বিয়ে শাদী করা খুব মঙ্গলজনক।

শাওয়াল-শাওয়াল মাসের প্রথম তারিখে নতুন চাঁদ দেখার পরে সবুজ কাপড় দেখা ভাল। এ চাঁদে বিয়ে শাদী করা, নতুন ঘর তৈরি করা ও অন্য কোন শুভ কাজ আরম্ভ করা মঙ্গলজনক।

জিলকদ-জিলকদের নতুন চাঁদ দেখার পর ছোট শিশু ছেলেমেয়েদের কোলে নিয়ে চাঁদ দেখা অত্যন্ত সওয়াবের কাজ। এ মাসে বিয়ে শাদী, নতুন ঘর তৈরি করা বা কোন নতুন কাজ আরম্ভ করা যায়।

জিলহজ্ব– জিলহজ্ব মাসের নতুন চাঁদ দেখা মাত্র তলবিয়া পাঠ করা ও অন্যান্য লোককে ডেকে চাঁদ উঠার সংবাদ জানানো অত্যন্ত সওয়াবের কাজ। এ চাঁদে যে কোন নতুন ও শুভ কাজ করা মঙ্গলজনক

Sharing is caring!

Top
error: Content is protected !!