Horrible Prediction (ভয়ঙ্কর ভবিষ্যদ্বাণী)

“The truth that will change you at this momentarily”

To know Shah Sufi Aftab Babar will be in the future till 2030. Already, he has got a great prediction of many reputable people in the world, and he has earned the reputation of a future of this time. Today we will know some important predictions. And after knowing these predictions, our way of life is just like changing the way we live our life. First of all, I think you need to tell some information about father. It is not yet possible for anyone to know about the birth and of father’s details. Because he was hurriedly walking around the corner of a remote Oran, Because of his has spiritual touch, People welcome and accept him, He said that, he was born in a forest of Tibet. He did not say anything more. However, today we present some important predictions for you, He said that, the following events are going to occur in the year 2030.
1) Excellence of technology – By 2030, every district of many countries of the world will be with the Mayor and District Administrator in the district, Weather Control Remote Control, which will be possible to move or bring the Acacia cloud for the public’s need. Basically the entire work will be done via satellite. This will not result in excessive rain or the loss of agricultural product in the catch of .
2) World population decreases: Father says that by the year 2030, the world is going to see, after the three more World War II. Which will make many countries of the world damaged. Millions of people will die after waking up, the present population of the world where there are more than 700 million people will go to the number 2.5 to 3 hundredth century. As a result, after a period of economic downturn, we will again reach a high level of prosperity.
3) We will be largely controlled by mechanical man, due to the population deficiency in the world, and due to the extreme excellence of technology, most of the human work machines will be dependent. Robotics will be widely used in the textile industry, especially in the areas of traffic, agriculture, materials manufacturing.
4) Reduce will the chances of religion, except in many countries, religion will not be discussed at all places, most people will be transformed into atheism. In the meantime, the number of nihilistic followers will increase.
5) We will be very excited to meet our masters (the Intelligent people who have left us on this earth at one time). Sometimes we can communicate predictions and information on different signals and their arrival. But there will be no damage to the earth at this moment.
6) People will be reduced to delusion, affection, respect, fear, sarcasm, love. People will depend on their actions. Female men will only be able to communicate with each other in a timely fashion for sexual relation, which is temporary, every person will be combined with multiple sexual intercourse. Fulfill sex will become independent independence.
7) The number of poverty in the world will be reduced drastically, the average rate of poverty will be 7%, here is an interesting fact that people will be afraid to eat animals, instead the number of vegetarian banquets will be available, as well as the demand and use of packaged food items.
Now think about what you will prepare in this period. Will you change the way you live? Or do you think it will be a mistake? Today you see from our discussion yesterday may not be seen tomorrow. Because if half of the world’s people accept the death of death, then why are you or me not?

“যে সত্যটি এই মুর্হুতেই আপনাকে পাল্টে দেবে”

যেনে নিন শাহ সুফি আফতাব বাবার ২০৩০ সাল পর্যন্ত কিছু ভবিষ্যৎ বানি। ইতিমধ্যেই বিশ্বের অনেক খ্যতনামা ব্যক্তিদের নিয়ে তিনি বেশ চমকপ্রদ ভবিষ্যৎবানী করে সময়ের র্শিষ্য একজন ভবিষ্যৎ বক্তার সুনাম কুড়িয়ে নিয়েছেন। আজ তেনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ ভবিষ্যৎবানী আমরা জানবো। আর এ সকল ভবিষ্যৎবানী জানার পর আমাদের মত আপনার নিজের জীবন চলার রাস্তা এই মুহূর্তে হতেই বদলে যেতে বাধ্য। সবার পূর্বে বাবার সর্ম্পক্যে কিছু তথ্য আপনাদের জানানো প্রয়োজন মনে করছি। বাবার জন্ম ও তেনার বিষয় বিস্তারিত জানা কাহারো পক্ষেই এখনো সম্ভব হয়নি। কারন তিনি হটাৎ করেই একদিন এক প্রত্যন্ত অরন্যের পার্শ্বের বাজারে ঘোরা ঘুরি করছিলেন, বেশ ভুষায় আধ্যাত্মিকতার ছাপ স্পষ্ট থাকায় লোকজন তাকে সাদরে গ্রহন করেন, তিনি বলেন তেনার জন্ম নাকি তিব্বতের কোনো এক জঙ্গলে। এর বেশি কিছু তিনি বলেন নি। যাই হোক আজ আমরা তেনার দেওয়া গুরুত্বপূর্রণকিছু ভবিষ্যৎবানী আপনাদের সামনে তুলে ধরছি, তিনি বলেন ২০৩০ সালের মধ্যেই নিম্নের ঘটনা গুলো ঘটতে চলছে।
১) প্রযুক্তির চরম উৎর্কষ- ২০৩০ সালের মধ্যেই পৃথিবীর প্রায় অনেক দেশের প্রতিটি জেলায় জেলায় মেয়র ও জেলা প্রশাষকের নিকট থাকবে, আবহাওয়া নিয়ন্ত্রক রিমট কন্ট্রল যা দ্বারা জনগনের প্রয়োজনানুপাতে আকাসের মেঘ সরানো বা নিয়ে আসা সম্ভব হবে। মুলত সম্পূর্ণ কাজটি হবে স্যাটালাইটের মাধ্যমে। এর ফলে আর অতি বর্ষন বা খ’রার কবলে পড়ে কৃষি পন্যের লোকশান গুনতে হবে না।
২) বিশ্বের জনসংখ্যা হ্রাসঃ বাবা বলেছেন ২০৩০ সালের মধ্যেই পৃথিবী দেখতে চলেছে পর পর আরও তিনটি মহাযুদ্ধ। যা পৃথিবীর অনেক দেশকে ধ্বংসস্তুপে পরিনত করবে। কোটি কোটি মানুষ মারা পরবে অঝরে, বর্তমান বিশ্বের মোট জনসংখ্যা যেখানে প্রায় ৭শ কোটির বেশি সেখানে জন সংখ্যা গিয়ে দাঁড়াবে ২.৫শ-৩শ কোটিতে। এর ফলে আমাদের একটি সময় অর্থনৈতিক অবনতীর পর পুনরায় বিপুল পরিমান উন্নতীর শিখরে পৌঁছে যাবে।
৩) আমরা যান্ত্রিক মানুষ দ্বারা অনেকাংশে নিয়ন্ত্রিত হতে পরবো, বিশ্বে জনসংখ্যা ঘাটতির কারনে, ও প্রযুক্তির চরম উৎকর্ষের কারনে, মানব সমাজের অধিকাংশ কাজ’ই যন্ত্র নির্ভর হয়ে পরবে। বিশেষ করে ট্রাফিক, কৃষি, যন্ত্রাংশ তৈরী, বস্ত্র শিল্পে ব্যাপক ভাবে রোবটিক্স ব্যবহৃত হবে।
৪) ধর্মের জয়গান কমে যাবে গুটি কতক দেশে ছাড়া ধর্ম বিষয় আলোচনা সকল স্থানে হবে না, অধিকাংশ মানুষ নাস্তিকে রুপান্তরিত হবে। তবে এর মধ্যেই বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারির সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে।
৫) আমরা আমাদের প্রভুদের (যে সকল অতিবুদ্ধিমান প্রানী বা এ্যালিয়ান এক সময় আমাদের এই পৃথিবীতে ছেড়ে দিয়ে গিয়েছিলো) সাক্ষাৎ পাওয়ার খুব কাছা কাছি চলে যাবো। মাঝে মাঝেই বিভিন্ন সংকেত ও তাদের আগমনের পূর্বাভাস ও তথ্য আদান প্রদান করতে পারবো। তবে তাদের দ্বারা পৃথিবীর কোনো ক্ষতি এই মুহুর্তে হবে না।
৬) মানুষের মাঝে মায়া, মমতা, শ্রদ্ধা, ভয়, সংকোচ, ভালোবাসা হ্রাস পাবে। মানুষ নিজ নিজ কর্ম নির্ভর হয়ে যাবে। স্ত্রী পুরুষ একে অপরের সাথে শুধু সেক্সচুয়াল রিলেশনের জন্য সাময়ীক সখ্যতা গরে তুলবে, যা ক্ষনস্থায়ী, প্রতিটি মানুষ একাধিক যৌন সংগির সংগে মিলিত হবে। সেক্স পরিপূর্ণ স্বাধীন স্বতন্ত্র হয়ে যাবে।
৭) বিশ্বে দারিদ্রের সংখ্যা একেবারেই কমে যাবে গড়ে দারিদ্রের হার হবে ৭%, এখানে একটি মজার বিষয় হচ্ছে মানুষ প্রানী ভক্ষণ করতে ভয় পাবে, এর পরিবর্তে নিরামিষ ভোজির সংখ্যা বেরে যাবে, সেই সাথে বাড়বে প্যাকেট জাত খাবারের চাহিদা ও ব্যবহার।

এবার তাহলে আপনি ভেবে দেখুন আপনি কি প্রস্তুতি নিবেন এই সময়ের মধ্যে। আপনি কি আপনার জীবন চলার পথ পরিবর্তন করবেন। নাকি আপনি ভাব বাদি হয়ে যাবেন। আজ আপনি আমাদের এই আলোচনাটি থেকে দেখছেন কাল হয়তো নাও দেখতে পারেন। কারন পৃথিবীর অর্ধেক মানুষ যদি মৃত্যুর স্বাদ গ্রহন করে তবে সেই কাতারে আপনি বা আমি নই কেনো???

Sharing is caring!

Top
error: Content is protected !!